দৃষ্টি শক্তি ভাল রাখতে যে খাবার গুলো চোখের প্রয়োজন
দৃষ্টি শক্তি ভাল রাখতে যে খাবার গুলো চোখের প্রয়োজন
ক্যাটাগরি: ডাক্তার পরামর্শ , হেলথ টিপস , চক্ষু বিষয়ক
লিখেছেন : AS Tushar ২ বছর ৪ মাস ৬ দিন ৯ ঘন্টা ১৮ মিনিট আগে ৭১২

চোখের দৃষ্টি শক্তি বয়সের সাথে সাথে কমে আসে, সেটা আমরা প্রায় কম বেশী সবাই-ই জানি। কিন্তু খেয়াল করেছেন কি, কেউ কেউ অনেক বৃদ্ধ হয়ে যাবার পরও চশমার ধারই ধারেন না। গবেষকরা বলেন, এর পেছনে রয়েছে খাদ্যা ভ্যাসের দারুণ এক প্রভাব। কিছু কিছু খাবার নিয়মিত গ্রহণ করলে তা চোখের দৃষ্টি শক্তি ভালো রাখতে সাহায্য করে এবং বয়েসের সাথে সাথে চোখের যে ক্ষতি তার গতি কমিয়ে আনতে সাহায্য করে। অথচ এই খাবারগুলো কিন্তু মোটেই দামী নয়। খুব সহজলভ্য এবং সস্তাও।

দৃষ্টি শক্তি ভাল রাখতে খাবার গুলো কি কি জেনে নিই

গাজরঃ

গাজর মূলত শীতকালের সবজি হলেও এখন কিন্তু এটি প্রায় সারা বছরই মেলে। এটি চোখের জন্যে ভালো কেননা, সব কমলা রঙের সবজি ও ফলই তাদের এই রংটা পায় বিটা-ক্যারোটিন থাকে। এটি চোখের ভেতর দিয়ে আলোর প্রবাহকে শোষণ করে ও রাতে কম আলোতেও দেখার শক্তি বাড়ায়। চেষ্টা করুন প্রতিদিন একটি হলেও গাজর খেতে। অথবা মিষ্টি কুমড়া, মিষ্টি আলুর সাথে গাজর সামান্য অলিভ অয়েল দিয়ে রান্না করেও খেতে পারেন। কারণ অলিভ অয়েল সবজির ভারী কোষ প্রাচীর গুলোকে সহজে ভেঙ্গে দেয় ও দেহকে সেগুলো থেকে সহজে পুষ্টি গ্রহণে সাহায্য করে।

তৈলাক্ত মাছঃ

টুনা, স্যামন, রুই ইত্যাদি তৈলাক্ত মাছ গুলো ফ্যাটি এসিডে পরিপূর্ণ, যা চোখের রেটিনার চার পাশে থাকা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আমেরিকান ন্যাশনাল আই ইনস্টিটিউট এর গবেষণা অনুযায়ী ফ্যাটি এসিড প্রাপ্ত বয়স্কদের এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ্। সপ্তাহে দু বার এই মাছ খাবারের তালিকায় তো রাখাই যায়!

ব্রোকলিঃ

এটি এমন একটি সবজি যার সাস্থ্য উপকারিতা অনেক। এতে রয়েছে ভিটামিন এ, সি,ই এবং লুটেনিন।এই উপাদান গুলো চোখ ভাল রাখে,দৃষ্টি শক্তি ভাল রাখে। পালং শাক অন্যান্য সবুজ সবজি যেমন ব্রকলির মতন পালং শাকও জিয়ানথিন ও লুটেনিন এ পরিপূর্ণ। লুটেনিন উপাদানটি চোখে পিগমেন্ট তোইরী করে যা ক্ষতিকর নীল রশ্মি থেকে চোখকে বাঁচায়।যা বয়েসের সাথে সাথে চোখকে অন্ধত্বের দিকে নিয়ে যাবার জন্যে দায়ী। প্রতিদিন মাত্র ১০০ গ্রাম পালং শাক সালাদ অথবা একটু-খানি লবন দিয়ে সেদ্ধ করে খেয়ে নিন। চোখ ভালো থাকবে প্রত্যাশার চেয়েও অনেক বেশী সময় ধরে।

মিষ্টি আলুঃ

মিষ্টি আলু পুষ্টিগুণে ভরপুর। এতে রয়েছে বিটা-ক্যারোটিন, ভিটামিন-সি, ই ও ডি। চোখের যত্নে মিষ্টি আলু খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি খাবার। এটি চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে। দৃষ্টি শক্তি ধরে রাখতে এর তুলনা হয়না। প্রতিদিন একজন মানুষের যতটুকু পুষ্টি দরকার তার বেশিরভাগই মেলে মাঝারি আকারের একটি মিষ্টি আলুতে। এতে রয়েছে প্রতিদিনের চাহিদার ২৮ শতাংশ ম্যাঙ্গানিজ ও ৪০ শতাংশ ভিটামিন সি।মিষ্টি আলু শুধু চোখের যত্নেই কাজে লাগে না, হাড়ের ক্ষয়রোধেও সাহায্য করে। রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে রাখতেও মিষ্টি আলু বেশ উপকারী।

আখরোট-বাদামঃ

আখরোটে আছে উদ্ভিজ্জ ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড, যা সামুদ্রিক খাবার থেকে ভিন্ন। এটি রক্ত প্রবাহ, লিপিডের মাত্রা ইত্যাদি ঠিক রাখতে সাহায্য করে, যা চোখ ও অপরাপর দেহ যন্ত্র গুলোর জন্য গুরুত্বপূর্ণ। নিয়মিত বাদাম খেলে বার্ধক্য জনিত চোখের অসুখ অনেকটা কমে যায়। আর আমন্ডে থাকা ভিটামিন ই চোখের ক্রমাগত দৃষ্টি শক্তি হারিয়ে যাওয়াকে রোধ করে। বেশী নয়, প্রতিদিন একটি করে আমন্ড খাওয়াই যথেষ্ট! সচেতনাঃ আমাদের খাদ্যাভাসে এই খাবার গুলো যোগ করে চোখকে ভালো রাখুন দীর্ঘ সময় ধরে।

আপনার জন্য নির্বাচিত
কেন পা কামড়ায়? যা করবেন লিখেছেন : Zulfikar Bin Hossain
১ বছর ১১ মাস ২৯ দিন ১৯ ঘন্টা ১৮ মিনিট আগে ৪৩০২২
কালোজিরা খাওয়ার নিয়ম ও এর উপকারিতা লিখেছেন : Zulfikar Bin Hossain
১ বছর ১১ মাস ১৫ দিন ২ ঘন্টা ৫৯ মিনিট আগে ৩৮১১১
রক্ত ও রক্তের উপাদান লিখেছেন : AS Tushar
২ বছর ৪ মাস ১২ দিন ২০ ঘন্টা ১ মিনিট আগে ১৯৬১০