জিভে ঘা হয় কেন? করনিয় কি? জেনে নিন
জিভে ঘা হয় কেন? করনিয় কি? জেনে নিন
ক্যাটাগরি: শারীরিক সমস্যা , সাম্প্রতিক , স্বাস্থ্য সংবাদ , হেলথ টিপস
লিখেছেন : Zulfikar Bin Hossain ১ বছর ১০ মাস ২ দিন ২১ ঘন্টা ৫ মিনিট আগে ৯০৭৩

জিভে ঘা কি?

জিভের ঘা হল জিভের উপরে বা নিচে হওয়া উন্মুক্ত ক্ষত এবং যদিও এই সমস্যাটি গুরুতর অথবা প্রাণঘাতী না হলেও, আক্রান্ত ব্যক্তিকে সাধারণত অস্বস্তিতে ফেলে দিতে পারে। জিভে ঘায়ের কারণ মুখের অন্যান্য স্থানে হওয়া ঘায়ের মতোই হতে পারে।

এর সঙ্গে জড়িত প্রধান লক্ষণ ও উপসর্গগুলি কি?

জিভে আলসার বা ঘায়ের লক্ষণ ক্ষতের আকারে দেখা দেয়, আকারে তা বড়োও হতে পারে আবার ছোটোও। ঘা জিভের উপরে, জিভের পিছনে অথবা জিভের তলায় দেখা দিতে পারে।

এই ঘা যন্ত্রণাদায়ক হতে পারে এবং প্রায়শই লালচে রংয়ের হয়। কিছু ক্ষেত্রে, ঘা সাদা বা হলদেটে রংয়ের দেখতে হতে পারে। আলসারে কারণে হওয়া ব্যথার সঙ্গে জ্বালাভাবের অনুভূতি হতে পারে, সাধারণত গরম অথবা ঝালমশলাদার খাবার খাওয়ার পর তীব্রতা বাড়ে।

এর প্রধান কারণগুলি কি?

জিভে ঘা হওয়ার সবথেকে সাধারণ কারণগুলি হল:

  • সংক্রমণ - মুখে ভাইরাল বা ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমন থেকে ঘা হতে পারে। এটি পরোক্ষভাবে মুখের ভিতরকার অপরিচ্ছন্নতার সঙ্গে সম্পর্কিত।
  • পুষ্টির অভাব - লোহা, দস্তা অথবা ভিটামিন এ-র অভাবের ফলে জিভ আর মুখে ঘা হতে পারে।
  • আঘাত - জিভে কামড়ে ফেলা অথবা বাঁধানো দাঁত নয়ত বা ব্রেস ব্যবহারের কারণে লাগা সাম্প্রতিক আঘাত থেকে ফোস্কা বা ঘা তৈরি হতে পারে।
  • ক্যাঙ্কার সোর বা মুখের ক্ষত -  হলুদ ও সাদা রঙয়ের ফোস্কা, যা মুখের পাশাপাশি জিভেও হতে পারে মুখ কেটে যাওয়া, হরমোনের পরিবর্তন, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের মতো নানা কারণে।
  • খাদ্যের প্রতি সংবেদনশীলতা - ঝাল এবং টক জাতীয় কিছু খাবার অস্বস্তির সৃষ্টি করতে পারে আর তার থেকে জিভে ঘা হয়।

এটি কিভাবে নির্ণয় এবং চিকিৎসা করা হয়?

শারীরিক পরীক্ষার মাধ্যমে জিভে ঘা নির্ণয় করা হয়।

সামান্য যত্ন করলে এগুলি সাধারণত আপনা থেকেই সেরে যায়। যদি নির্দিষ্ট কিছু পুষ্টি উপাদানের অভাবে এই ঘা হয়ে থাকে, তাহলে চিকিৎসক এইসব পুষ্টি উপাদানের একটি খাদ্যতালিকা তৈরি করে দেন গ্রহণের জন্য।

কিছু ঘরোয়া পথ্যও রয়েছে, যা জিভে ঘা সারাতে অত্যন্ত কার্যকরী।

নুন জল দিয়ে কুলকুচি করা জিভের ঘা শুকোতে এবং ক্ষতিকারক ব্যাকটেরিয়া ধ্বংস করতে সাহায্য করে। বিকল্প হিসেবে, নুন ও জল দিয়ে তৈরি পেস্টের প্রয়োগও বেশ আরাম দেয়।

যন্ত্রণা কমানোর জন্য আক্রান্ত স্থান বরফ কুচি দিয়ে অসাড় করা কাজ দিতে পারে।

জিভে ঘায়ের ভোগান্তি পোহানোর সময় গরম ও ঝালমশলাদার খাবার এড়িয়ে ডলার পরামর্শ দেওয়া হয়, কারণ তাতে যন্ত্রণা বাড়তে পারে।

কিছু ক্ষেত্রে, ঘা তাড়াতাড়ি সারানোর জন্য চিকিৎসক প্রদাহরোধী ওষুধ দিতে পারেন।

আপনার জন্য নির্বাচিত
কেন পা কামড়ায়? যা করবেন লিখেছেন : Zulfikar Bin Hossain
১ বছর ১১ মাস ২৯ দিন ১৭ ঘন্টা ৫১ মিনিট আগে ৪৩০১৬
কালোজিরা খাওয়ার নিয়ম ও এর উপকারিতা লিখেছেন : Zulfikar Bin Hossain
১ বছর ১১ মাস ১৫ দিন ১ ঘন্টা ৩৩ মিনিট আগে ৩৮১০৮
রক্ত ও রক্তের উপাদান লিখেছেন : AS Tushar
২ বছর ৪ মাস ১২ দিন ১৮ ঘন্টা ৩৫ মিনিট আগে ১৯৬০৯